মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২, ০৬:৩৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম
আজকের পত্রিকা -০৪-০৬-২০২২ সৈয়দপুরে মাদক ব্যবসায়ীদের টার্গেট এখন ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ কমিটি, উদ্দেশ্য পদ পদবী বাগিয়ে নির্বিঘ্নে মাদক ব্যবসা  সৈয়দপুর বিমানবন্দরে ভিআইপি লাউঞ্জে নিরাপত্তা কর্মীর উপর যুবলীগ নেতার ক্ষমতার অপব্যবহার সৈয়দপুরের কল্যান ট্রাষ্টের নামে লন্ডাবাজার অবৈধ রেল মার্কেটের কোটি কোটি টাকা লুটপাঠ সৈয়দপুর রেল কারখানার জায়গায় অবৈধভাবে স্থাপিত সরকারী শিশু কল্যাণ ট্রাষ্ট স্কুল দুর্নীতিবাজ রেল কর্মকর্তার যোগসাজসে ভূমিদস্যুরা হাতিয়ে নিয়েছে রেলের কোটি টাকার সম্পদ সৈয়দপুর পৌর আ’লীগের ইফতার মাহফিলে দাওয়াত পাননি ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোকছেদুল মোমিন সৈয়দপুরে আসামীদের সাথে নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করলেন মোকছেদুল মোমিন সৈয়দপুর পৌরসভা কর্তৃক সরকারী সম্পত্তি আত্মসাতের অপরাধে রেল কর্তৃপক্ষের মামলা সৈয়দপুর বিমানবন্দর রোডে ৫৪৪নং রেল কোয়ার্টার ভেঙ্গে কোটি টাকার মার্কেট নির্মাণ, নির্বিকার রেল প্রশাসন

সৈয়দপুরের কল্যান ট্রাষ্টের নামে লন্ডাবাজার অবৈধ রেল মার্কেটের কোটি কোটি টাকা লুটপাঠ

মোতালেব হোসেন
  • সময় সোমবার, ১৬ মে, ২০২২
  • ১৬২ বার পঠিত

সৈয়দপুরে রেল কারখানার সামনে রেল কর্তৃক কর্মচারী কর্মকর্তাদের বাজার করার সুবিধার্থে কল্যান ট্রাষ্টের অনুকুলে রেলপথ মন্ত্রণালয় ভূমি শাখার পত্র নং-৫৪.০০.০০০০.০০৯.০৪.০০৩.১৪-৩১১ তারিখ ১৮/১১/২০২০ এর স্বারকে বাংলাদেশ রেলওয়ে কল্যান ট্রাষ্টের অনুকুলে সৈয়দপুরে বানিজ্যিক ভিত্তিতে অস্থায়ী লাইসেন্সের তালিকায় সৈয়দপুর রেল কারখানা গেট এলাকায় বানিজ্যিক রেল ভূমি ১৮২২৮=০.৪২ একর জমি ও সৈয়দপুর সাউথ কেবিন সংলগ্ন এলাকায় ১৮০০ বর্গফুট=০.০৪ একর ভূমি কল্যান ট্রাষ্টের অনুকুলে বরাদ্দ রহিয়াছে। কিন্তু বাস্তবে অবৈধ দখলদারেরা গেট বাজার এলাকায় বরাদ্দকৃত জমির ১৮২২৮ বর্গফুটের জায়গায় ৩১৪৭২ বর্গফুট জায়গা অতিরিক্তি জমি তৎকালীন ভূমিদস্যু কর্তৃক দখল করে মার্কেট নির্মান করিয়াছে। অতিরিক্ত ০.৩২২৫ একর জমি দীর্ঘদিন ধরে স্থানীয় ভূমিদস্যু সিন্ডিকেট ও দূর্নীতিবাজ রেল কর্মকর্তা কর্মচারীদের যোগসাজোসে দখল করে দোকানঘর নির্মান করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।

রেল কল্যান ট্রাষ্টের নাম ভাঙ্গিয়ে উক্ত রেল বাজারের পাশে মুক্তিযোদ্ধা রোড লন্ডাবাজার মার্কেট নামে আরেকটি মার্কেট বিদ্যমান। উক্ত মার্কেটটি স্থানীয় কুখ্যাত ভূমিদস্যু সিন্ডিকেট রেলের বাংলোর দেয়াল ভেঙ্গে দুইশত দোকান নির্মান করে হাতিয়ে নিয়েছে কোটি কোটি টাকা এই মার্কেটে সরকার দলীয় এক শ্রমিক নেতার দখলে রয়েছে ৮টি দোকান। পাশাপাশি উক্ত মার্কেট থেকে প্রতিটি দোকান থেকে প্রতিদিন ২০ টাকা হারে টোল আদায় করা হয়। পাশাপাশি রেললাইনের পূর্ব পাশে রেলবাজারের উল্টো দিকে একটি অবৈধ স্কুলের গেটের সামনে আরেকটি অবৈধ মার্কেট রয়েছে, এঙ্গেল টিন দিয়ে তৈরী সেই মার্কেটও তৈরী করেছে ভূমিদস্যুরা তারা দোকান বরাদ্দ দিয়ে হাতিয়ে নিয়েছে কোটি কোটি টাকা। সেখানে রয়েছে প্রায় ১৫০ দোকান সেইসব দোকান থেকেও প্রতিদিন টোল আদায় করা হয়। এই মার্কেটটি রেললাইনের ১০ ফিটের মধ্যে কিভাবে কারা তৈরী করলো সেটিও প্রশ্নবিদ্ধ। এ ব্যাপারে রেলের কানুনগো বলেন রেললাইনের ১০ ফিট জমি আইডাব্লু ও পিডাব্লু এর তত্বাবধানে । সেটি দেখার দায়িত্ব আইন শৃঙ্খলা বাহিনী জিআরপির।

এই কল্যান ট্রাষ্টের মার্কেট সম্পর্কে কানুনগো অফিসে যোগাযোগ করলে কানুনগো জিয়াউল হক বলেন কল্যান ট্রাষ্ট তার বরাদ্দের চাইতে অতিরিক্ত জমি দখল করে মার্কেট নির্মান করেছে অতিরিক্ত জমির দখলকালীন সময় থেকে খাজনা আদায়ের জন্য আমরা পত্র দিয়েছি। লন্ডাবাজার মার্কেটের দোকান বরাদ্দ মার্কেট তৈরী সম্পর্কে আমাদের কাছে কোন তথ্য নেই। তারা অবৈধভাবে রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে মার্কেট তৈরী করেছেন। এব্যাপারে একাধীক জনপ্রতিনিধির সাথে কথা বললে তারা বলেন এইসকল ভূমিদস্যু দূর্নীতিবাজ পদস্থ কর্মকর্তা কর্মচারীদের কারণেই রেলের সম্পদ লুটেপুটে খাচ্ছে কতিপয় ভূমিদস্যু সিন্ডিকেট রেল হারাচ্ছে মূল্যবান সম্পদ সাংবাদিক লিখতে গেলে লাঞ্ছিত অপমানিত হতে হচ্ছে এইসকল ভূমিদস্যু সিন্ডিকেটের কাছে।
এইসব টোলের টাকা কার পকেটে যায় সেই সংবাদ জানানো হবে আগামী পর্বে।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ধরনের আরও সংবাদ
 

দৈনিক দাবানল © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০

themesba-lates1749691102