মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২, ০৬:২৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম
আজকের পত্রিকা -০৪-০৬-২০২২ সৈয়দপুরে মাদক ব্যবসায়ীদের টার্গেট এখন ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ কমিটি, উদ্দেশ্য পদ পদবী বাগিয়ে নির্বিঘ্নে মাদক ব্যবসা  সৈয়দপুর বিমানবন্দরে ভিআইপি লাউঞ্জে নিরাপত্তা কর্মীর উপর যুবলীগ নেতার ক্ষমতার অপব্যবহার সৈয়দপুরের কল্যান ট্রাষ্টের নামে লন্ডাবাজার অবৈধ রেল মার্কেটের কোটি কোটি টাকা লুটপাঠ সৈয়দপুর রেল কারখানার জায়গায় অবৈধভাবে স্থাপিত সরকারী শিশু কল্যাণ ট্রাষ্ট স্কুল দুর্নীতিবাজ রেল কর্মকর্তার যোগসাজসে ভূমিদস্যুরা হাতিয়ে নিয়েছে রেলের কোটি টাকার সম্পদ সৈয়দপুর পৌর আ’লীগের ইফতার মাহফিলে দাওয়াত পাননি ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোকছেদুল মোমিন সৈয়দপুরে আসামীদের সাথে নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করলেন মোকছেদুল মোমিন সৈয়দপুর পৌরসভা কর্তৃক সরকারী সম্পত্তি আত্মসাতের অপরাধে রেল কর্তৃপক্ষের মামলা সৈয়দপুর বিমানবন্দর রোডে ৫৪৪নং রেল কোয়ার্টার ভেঙ্গে কোটি টাকার মার্কেট নির্মাণ, নির্বিকার রেল প্রশাসন

সৈয়দপুর উপজেলা আ’লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদককে হত্যার চেষ্টাকারীদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবিতে আ’লীগ একাংশের বিক্ষোভ মিছিল

মোতালেব হোসেন
  • সময় রবিবার, ১০ এপ্রিল, ২০২২
  • ৩৮২ বার পঠিত

সৈয়দপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের বর্তমান ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোকছেদুল মোমিন ছিলেন রেলওয়ে কারখানার টিকিট নং-৬০১৬ মিলরাইট শপের একজন মিস্ত্রী। ১৩ই অক্টোবর ২০০৯ সালের নয়াদিগন্ত পত্রিকায় উক্ত শ্রমিক নেতার বিরুদ্ধে একটি দূর্নীতির সংবাদ প্রকাশিত হয় যার শিরোনাম ছিলো শ্রমিকলীগ নেতার নিয়ন্ত্রনে সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানা, নয় মাসে হাতিয়ে নিয়েছে কোটি কোটি টাকা। তার উল্ল্যেখ যোগ্য দূর্নীতির মধ্যে রয়েছে ৬৪০ টি রেলের কোয়ার্টার বিক্রি, রেলের গেটবাজারে ১০০টি দোকান, বিভাগীয় তত্বাবধায়ক অফিসের পাশে এল ১২৪ নং ভবন দখল করে তার নিজের বোনকে দান করা, সৈয়দপুর সেনানিবাস সড়কে ১১০ নং পাকা ভবনটি দখল করে তার ভাইকে দিয়ে সেখানে কোচিং ব্যবসা করানো, শ্রমিক শামীম উদ্দিনের সি-৩২৫ নং বাড়িটি বিক্রী, মিস্ত্রিপাড়ায় রুস্তম আলীর ফলের আড়ৎ দখল, মুন্সীপড়ায় মেথরপট্টির ১০০টি প্লট বিক্রি এটি তার ২০০৯ সালের করা ৯ মাসের দূর্নীতির হিসাব। ২০১১ সালের পরে তার ভাইকে বানিয়েছেন রেলের সাপ্লাই ঠিকাদার। রেল রিমডেলিং এর কাজ ও সৈয়দপুর চিলাহাটি রেললাইন সংস্কার কাজ শুরু হলে অকেজো স্ক্র্যাপ মালামাল কারখানা থেকে লুঠ করে নিয়ে যায়। উক্ত অবৈধ টাকা দিয়ে ১৮৭০০ টাকা বেতন থাকা অবস্থায় ২ কোটি টাকা খরচ করে বিলাস বহুল বাড়ি নির্মান করেন। রেল কারখানায় কর্মরত অবস্থায় ১৫ই জানুয়ারী ২০১৫ সালে রেল কারখানার ১২ নং গেটের সামনে কেপিআই জমি দখল করে তার নিজ বাবার নামে স্কুল বানান। তার ভাইকে বানান সেই স্কুলে প্রধান শিক্ষক।

অবৈধ জমিতে প্রতিষ্ঠিত উক্ত স্কুলটি ক্ষমতার অপব্যবহার করে উদ্ধোধন করান তৎকালীন সাংস্কৃতিক মন্ত্রী, নীলফামারী জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও সভাপতিসহ রেলের উদ্ধর্তন কর্মকর্তা ডিএস সহ অনেক গন্যমান্য ব্যক্তিকে দিয়ে। চাকুরীরত অবস্থায় তিনি পৌর আওয়ামীলীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক ছিলেন সেই সময় উপজেলা নির্বাচন সামনে আসলে তিনি চাকুরী ছেড়ে দিয়ে নির্বাচনে নামেন। ২০১৭ সালে দূদকের অনুসন্ধানে রেলওয়ের ৫ হাজার কোটি টাকার ভূসম্পত্তি দখলের মূল ভুমিদস্যু হিসাবে মোকছেদুল মোমিনের নাম অভিযুক্ত তালিকার প্রথমে আসে এবং রেল মন্ত্রণালয় ২০২১ সালে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য স্থানীয় সরকার মন্ত্রলণালয়কে নির্দেশ দেয়। যা নিয়ে ২০২১ সালের ১৯ শে জুন জাতীয় দৈনিক যুগান্তর পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়। ২০১৯ সালে রেলের একটি পুরাতন ভবন (বিআর সিং ইন্সটিটিউট) ভেঙ্গে রাতারাতি গায়েব করে দেন। রেল কর্তৃপক্ষ থানায় অভিযোগ দায়ের করলে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সৈয়দপুর, অশোক কুমার পাল ২২/০২/২০২০ ইং তারিখে তার বিরুদ্ধে সরকারী সম্পদ আত্মসাতের দায়ে অভিযোগ পত্র দায়ের করেন।

গত কয়েকদিন ধরে রেল কারখানার ব্যাকবোন ড্রেন দখল করে সৈয়দপুর পৌরসভা কর্তৃক স্থায়ী স্থাপনা নির্মান শুরু হলে দৈনিক দাবানল পত্রিকায় ধারাবাহিক সংবাদ পরিবেশিত হলে গত ৮ এপ্রিল ২০২২তারিখে দৈনিক দাবানল পত্রিকার নীলফামারী জেলা প্রতিনিধি ও উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যান বিষয়ক সম্পাদক মোতালেব হোসেনকে এই সংবাদ পরিবেশনের দায়ে উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোকছেদুল মোমিনের ক্যাডার ও পৌরসভার কিছু কর্মচারী মিলে রাত তার প্রান নাশের উদ্দেশ্যে রাত ১০ টার দিকে তার উপর অতর্কিত হামলা চালায় এতে তিনি গুরুতর আহত হন। মোতালেব হোসেনের উপর অন্যায় হামলার প্রতিবাদে উপজেলা আওয়ামীলীগের সকল স্তরের নেতাকর্মী ভারপ্রাপ্ত এই দূর্নীতিবাজ নেতা মোকছেদুল মোমিনের বিরুদ্ধে গতকাল ৯ই এপ্রিল রাত ৯টায় রমজান মাস হওয়ার পরেও মনের ক্ষোভে সাধারন সম্পাদক মহসিনুল হক ও কাজী রাশেদের নেতৃত্বে একটি বিশাল বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। মিছিলে সকল নেতাকর্মী দূর্নীতিবাজ ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোকছেদুল মোমিনের অপসারন চেয়ে মূর্হমূহু শ্লোগান হয়, সভাপতির দুই গালে জুতা মারো তালে তালে। মিছিল শেষে মদিনা মোড়ে অস্থায়ী সভামঞ্চে নেতারা বক্তব্য দেন এবং আইন অমান্যকারী ব্যাক্তিদের বিরুদ্ধে অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবী জানান।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ধরনের আরও সংবাদ
 

দৈনিক দাবানল © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০

themesba-lates1749691102