মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২, ০৬:১০ অপরাহ্ন
শিরোনাম
আজকের পত্রিকা -০৪-০৬-২০২২ সৈয়দপুরে মাদক ব্যবসায়ীদের টার্গেট এখন ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ কমিটি, উদ্দেশ্য পদ পদবী বাগিয়ে নির্বিঘ্নে মাদক ব্যবসা  সৈয়দপুর বিমানবন্দরে ভিআইপি লাউঞ্জে নিরাপত্তা কর্মীর উপর যুবলীগ নেতার ক্ষমতার অপব্যবহার সৈয়দপুরের কল্যান ট্রাষ্টের নামে লন্ডাবাজার অবৈধ রেল মার্কেটের কোটি কোটি টাকা লুটপাঠ সৈয়দপুর রেল কারখানার জায়গায় অবৈধভাবে স্থাপিত সরকারী শিশু কল্যাণ ট্রাষ্ট স্কুল দুর্নীতিবাজ রেল কর্মকর্তার যোগসাজসে ভূমিদস্যুরা হাতিয়ে নিয়েছে রেলের কোটি টাকার সম্পদ সৈয়দপুর পৌর আ’লীগের ইফতার মাহফিলে দাওয়াত পাননি ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোকছেদুল মোমিন সৈয়দপুরে আসামীদের সাথে নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করলেন মোকছেদুল মোমিন সৈয়দপুর পৌরসভা কর্তৃক সরকারী সম্পত্তি আত্মসাতের অপরাধে রেল কর্তৃপক্ষের মামলা সৈয়দপুর বিমানবন্দর রোডে ৫৪৪নং রেল কোয়ার্টার ভেঙ্গে কোটি টাকার মার্কেট নির্মাণ, নির্বিকার রেল প্রশাসন

ভিন্ন জায়গায় থেকেই গান প্রস্তুতে অভ্যস্ত হচ্ছি: ঐশী

বিনোদন প্রতিবেদক
  • সময় বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর, ২০২০
  • ৩৭৫ বার পঠিত

 

কিছুদিন আগের কথা, ‘মায়া’ গানটি দিয়ে মায়ার রেশ ছড়িয়ে দিয়েছিলেন তরুণ কণ্ঠশিল্পী ঐশী। মায়া দ্য লস্ট মাদার সিনেমার শিরোনাম সংগীতটির কথা-সুর ও গান শ্রোতাকে দিয়েছে নিজেকে দেখার অবকাশ। গানের এই রেশটা থেমে গেল করোনা পরিস্থিতির কারণে। কিন্তু ঐশীর ব্যস্ততা কমেনি।

‘করোনার মধ্যে কিছুদিন তো অবশ্যই অবসর পেয়েছি। কিন্তু সেই বিরতি বেশিদিনের ছিল না। করোনার মধ্যেই ঘরে থেকে কিছু গান করেছি। আমার বাসায় রেকর্ডিংয়ের ব্যবস্থা থাকায় এটা সম্ভব হয়েছে। তাছাড়া অনলাইনে যুক্ত হতে হয়েছে বিভিন্ন আলোচনায় এবং গানের কিছু অনুষ্ঠানে।’ করোনা পরিস্থিতিতে ঘরে বসে যা করেছেন, সেই কথা বললেন ঐশী।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তার সঙ্গে যারা যুক্ত আছেন বা তার ভক্তদের সচেতন করতে ছোট ছোট সচেতনতামূলক ভিডিও নির্মাণ করেছেন তরুণ এই কণ্ঠশিল্পী। তাই এই বিরতি ঐশীকে অবসাদগ্রস্ত করতে পারেনি। তাছাড়া মেডিক্যালের এই শিক্ষার্থী লেখাপড়া করেও সময় কাটিয়েছেন ঘরবন্দি সময়ে।

ঐশী এখন ব্যাস্ত প্লে-ব্যাকে। সিনেমার বেশ কটি গান করছেন এই শিল্পী। আর এসবের খুব অল্পই ধারণ হয়েছে স্টুডিওতে। সংগীত পরিচালক, গীতিকার এবং কণ্ঠশিল্পী সবাই ছিলেন ভিন্ন ভিন্ন জায়গায়। অনলাইনে কথা বলে, বিভিন্ন নির্দেশনার মাধ্যমে তৈরী হয়েছে সেসব গান। ঐশী এই পদ্ধতিতে অভ্যস্ত হচ্ছেন। তবে তার ভালো লাগে সবাই একসঙ্গে বসে কাজ করতে।

‘আমরা ধীরে ধীরে এই প্রক্রিয়ায় অভ্যস্থ হচ্ছি। আলাদা আলাদা জায়গায় থেকেই এখন আমরা গান তৈরি করতে পারি। এই পদ্ধতি আমাদের মধ্যে আগেও ছিল। কিন্তু করোনা পরিস্থিতি এটাকে নিয়মিত ঘটনায় পরিণত করেছে।’

‘তবে আমি সবসময় এনজয় করি সুরকার, গীতিকার ও কণ্ঠশিল্পী একসঙ্গে বসে কোনো কাজ করলে। যেমন মায়া গানটি কিন্তু সবাই একসঙ্গে বসে তৈরি করা। তাই এর আবেদনটাও অন্যরকম। গানটি ধারণকরার আগে ইমন চৌধুরী আমার মধ্যে যে অনুভূতি তৈরি করলেন, যার কারণে হয়তো গানটাতে আমি আরও বেশি আবেগ দিতে পেরেছি। এটা অনলাইনে হয়তো সম্ভব হতো না।’ বললেন ঐশী।

সংগীতাঙ্গনের অনেক জায়গাতে এখন ধীরে ধীরে কাজ শুরু হয়েছে। ঐশীকে দেখা গেছে কিছু টিভি অনুষ্ঠানে। সম্প্রতি সফি মন্ডলের সঙ্গে প্রথমবারের মতো দ্বৈত গানে কণ্ঠ দিয়েছেন এই শিল্পী। সিনেমার জন্য তার গাওয়া বেশ কিছু গান রয়েছে প্রকাশের অপেক্ষায়।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ধরনের আরও সংবাদ
 

দৈনিক দাবানল © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০

themesba-lates1749691102